>

সোনালী পুপু

SONGSOPTOK THE WRITERS BLOG | 12/15/2015 |



সংগী
যদি চলে যাই পথে
শ্যাম চলে সাথে সাথে চরণে চরণ ঠেকাইয়ে
আমার সাথে সাথে চলে গো
ছোট বেলায় বড়রা তার ভরসায় রেখে কাজে গেছেন রোজ
শিশু কৈশোর কাল পেরিয়ে প্রেম অজান্তে হাত ধরলে এসে
প্রেম বুঝি?
হবে তাই
আমি শুধু পথে পথে দেখি পায়ে পায়ে জড়িয়ে রয়েছে
শ্যামলা নূপুর পড়া আরামের দাগ
সংসার ঢেউয়ের তালে তালেবর
স্কুবা প্যারা গ্লাইডার ডিপ সি ডাইভিং
দড়ি হাতে বসে আছে সাথে সাথে চলা
বন্ধুরা আড্ডায় কেউ নাস্তিক কেউ বা অস্তিতে
আমি চুপটি  হয়ে থাকি
জানিনা তো আমি কোন দিকে
শুধু রাস্তা পার হতে টের পাই
পায়ে পায়ে বাজে
ছবি বন্দ্যোপাধ্যায়ের গলা
চরণে চরণ ছুঁয়ে ছুঁই


ডালপালা
শিশুরা গাছের মতকষ্ট পায়নুয়ে পড়ে
ভাংগে না সহজে
তবু তো ওদের ই জন্যে সব দিকে  আলো
ঘরে ছোট ছোট চটি
হালুম বাঘের গল্প
পেনসিল ছাড়া কি থাকা যায়?
কত রংকত দোল
ভালবাসাসব ফের আসে
আবার ছোটরা আসে তাই
পুরোনোকে ধাক্কা  দিতে
বেয়াড়া সবুজ
ঝুল টুল ঝরে পড়ে খুস
জীর্ন কাঁচ খসে পড়ে যায়
জীবনের ঢেউ মেখে বুড়ো চুল
পা ছড়িয়ে বসে থাকে
ভিজে বালিহাঁস দামাল জলের ফেনা
কৈশোর বিষাণে বাজে যুধাজিত প্রানের উল্লাস
বেঁচে- আছি উৎসবের ডাক পড়ে কণায় কণায়

মোক্ষ
অনেক একঘেয়ে বিরক্তি মাখা কেজো দিনের নিরন্তর স্রোতে
একটা আধটা আশ্চর্য ঝিনুক আসে
ভিতরে জ্বল জ্বল করা মায়াবী  মহার্ঘ্য মুক্তো;
যে দিন তুমি আমার সংসার আর
কাজ আর দৈনন্দিন ব্যস্ততার বৃত্তপথের
মাঝখানে এসে দাঁড়িয়ে পড়তে পারো।
শরীরী খিদে নয় গয়নাগাটি নয়,
খাওয়া দাওয়ার মোটা ফর্দ ছাড়াই
শুধু তুমি আমার দৃষ্টির ছোঁয়ার মধ্যে আছো
ব্যস, চারদিকে আলো ঝলমল করে ওঠে।
কতদিন কত যুগ ধরে
ছোট বেলার পাগলামি থেকে
আজও এই আনন্দ আমার পাল্টাল না।
শিরশিরে হাওয়ার হেমন্তে ঝকঝকে রোদেলা আরামপ্রিয়
খুশীতে ভরপুর করা ভোর
তেমনি শুধু চলাফেরার ফাঁকে তোমায় দেখতে পাওয়া টুকু
এত আলো আনে কোথা থেকে?
জপ ধ্যান পুজোর প্রার্থনা এসব জানিনা শিখিনি
অপেক্ষায় আছি
যে মিস্তিরি কল কব্জা বানিয়েছে শেষে মুখোমুখি হবে
পাকড়ে জিজ্ঞেস করে নেবো
ব্যাপারটা কি প্রকার
অবুঝ সাজগোজ থেকে রূপোলী চুলের টান অবধি এই একটা মানুষ
নজরের বৃত্তের মধ্যে
সংসারের কাজের মধ্যে
পৃথিবীর সীমান্তের মধ্যে আছে
শুধু এটুকু জেনেই কেন ডগমগ ঝলমল করে
দেওয়ালির হাজার প্রদীপদানি
আমার ভিতরে
ব্যাস এই টুকু।
যেই তিনি উত্তর দিতে মুখ খুলবেন ------
অমনি আমার বোধিবৃক্ষে হাজার আলো জ্বলবে
জরা ব্যাধি ভয়ের ত্রিশূল হাতে অন্ধকারকে গুটিয়ে নিয়ে
পালিয়ে যাবে "মার"---
আর পায়েসের ভর্তি বাটি হাতে আমি উঠে দাঁড়াবো
বসুন্ধরা দেখবে আমার করপুটে টলমল করছে
আকাশ ছাপানো আলো
মহাগুণীজন তাকে মোক্ষ বলে ডাকে।

আজ আকাশ বাতাস জুড়ে সমস্ত পরমাণু শিউরে বলছে "ওম"
তুমি না থাকলে আমার পুজো ও আর পুজো হয়ে ওঠেনা।

সোনালী পুপু



Comments
0 Comments

No comments:

Blogger Widgets
Powered by Blogger.