>

আশকিন বিন আইয়ুব।

SONGSOPTOK THE WRITERS BLOG | 10/10/2014 |

        প্রতীক্ষা ও আন্যান্য কবিতা


প্রতীক্ষা
হাঁটতে হাঁটতে মাঝপথে এসে হাতটা ছেড়ে দিলে?
কিন্তু আমি পথ থেকে একটুও সরে দাঁড়াবো না,
একা একা এগিয়েও যাবো না আমি
দাঁড়িয়ে থাকবো তোমারই অপেক্ষায়
আমি জানি তুমি আসবেই
আমি তাকিয়ে রয়েছি তোমার চলে যাওয়ার দিকে,
দৃষ্টি উপেক্ষা করার ক্ষমতা তোমার নেই,
পিছু ফিরে তাকাতেই হবে তোমাকে
আমি জানি ফিরে তুমি আসবেই...
তোমাকে যে আসতেই হবে....




...অভিশাপ...
১.
জেব্রা ক্রসিংয়ে গেলেই নেমে আসে মিহিন গিলোটিন,
আর তার প্রচণ্ড ঝকঝকে হাসি!

২.
কিপ্পনধ্বনি -
ওদের ওগুলো সব কিপ্পনধ্বনি;

কাছেও এলো না- অথচ শাণানো আঁচড়।

বরং, এইসব ধ্বনিমুঠো থেকে
যদি পেরে উঠি-
নিশ্রুত বধির হবো কোনও দিন।

৩.
শিথিল মূহুর্ত!
অশুচি মুহুর্ত!
অবশ মুহুর্ত!

৪.
এইসব ইত্যাদি কশাঘাতে
বারংবার,

ক্যানো, কীভাবে, এইভাবে
আমি কেবলই হাবিজাবি হয়ে যাই...

৫.
নরোম মৃত্যুতে কাঁচপোকা
হয়ে ঝরে যাই খালি

......

সকাল কেন আসে

এই লেখাই একটি কবিতা হবার কথা ছিলো
কিংবা পারতপক্ষে কবিতা হওয়াই উচিৎ ছিলো।

কথা ছিলো- পিচঢালা দুপুরে আমরা ফিরে যাবো
অদ্ভুত গদ্য কবিতার একটি অভিন্ন লাইনে।
ব্যক্তিক মোহনায়- কথা ছিলো- নির্ভুল যতি টেনে
মুছে দিবে ভ্রান্ত মহাকর্ষ বল।

প্রাসঙ্গিক মেঘের অবিরাম বৃষ্টিতে
অজানা প্রশ্নেরা আবার জেগে উঠে-
বুঝি না- এখনো সন্ধার সুতো ধরে
সকাল কেন আসে !

[- আশকিন বিন আইয়ুব]







Comments
1 Comments

1 comment:

Blogger Widgets
Powered by Blogger.